Breaking News
Home / করোনার খবর / পাটুলি’তে করোনা-আক্রা’ন্ত স্বামী’কে জুতোপেটা প্রতিবেশীদের, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী’কে হেনস্থা

পাটুলি’তে করোনা-আক্রা’ন্ত স্বামী’কে জুতোপেটা প্রতিবেশীদের, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী’কে হেনস্থা

করোনা-আক্রান্ত রোগীকে ছেলের সামনে জুতোপেটার অভিযোগ উঠল। হেনস্থার হাত থেকে রেহাই পাননি আক্রান্তের স্ত্রীও। তিনি আবার পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা! ভারতের কলকাতার পাটুলি থানার কেন্দুয়ায় একটি বহুতল আবাসনে ছেলেকে নিয়ে থাকেন ওই দম্পতি। ভদ্রলোক

করোনা পজিটিভ। তিনি হোম আইসোলেশনে আছেন। সুস্থও রয়েছেন। যদিও ওই ফ্ল্যাটে থাকা নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরেই প্রতিবেশীরা
আপত্তি জানাচ্ছিলেন। তা নিয়ে বেশ কয়েক বার বচসাও হয়। অভিযোগ, মঙ্গলবার সকালে ওই ব্যক্তির স্ত্রী ছাদে গেলে, তাঁর উদ্দেশে

আপত্তিকর মন্তব্য করেন আবাসিকদের মধ্যে কয়েক জন। তিনি এবং তাঁর স্বামী এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে, তাঁদের হেনস্থা করা হয়। ছেলের সামনেই ভদ্রলোককে জুতোপেটা করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন তাঁর স্ত্রী। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম কলকাতা২৪।

এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই পাটুলি থানায় ই-মেল মারফত অভিযোগ জানিয়েছেন ওই দম্পতি। পুলিশ আক্রান্তের সঙ্গে কথাও বলেছে। ঠিক কী ঘটনা ঘটেছিল, তা খতিয়ে দেখছেন পুলিশকর্মীরা। আক্রান্তের স্ত্রী বুধবার বলেন, “গত ১৭ জুলাই স্বামীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

তার পর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফ্ল্যাটেই রয়েছি। এর পর থেকেই প্রতিবেশীদের কয়েক জন আমাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতে শুরু করেন। ছেলের সামনেই ঘরের মধ্যে ঢুকে আমার স্বামীকে জুতোপেটা করেন ওঁরা। আমি নিজে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। করোনা রোগীরা যদি এমন হেনস্থার স্বীকার হন, তা হলে তাঁরা যাবেন কোথায়?”

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওই আবাসনের আবাসিকেরা। তাঁদের দাবি, এমন কোনও ঘটনাই ঘটেনি। পাল্টা অভিযোগ, ওই ফ্ল্যাটে এক জন করোনা রোগী রয়েছেন। কিন্তু পরিবারের সদস্যেরা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিচ্ছেন না। আবাসনের বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাফেরা করছেন তাঁরা। লিফট ব্যবহার করছেন। তাতে অন্যদেরও আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। তবে কেউ তাঁদের নিগ্রহ করেনি বলেই আবাসিকদের দাবি। তাঁরাও পাল্টা থানায় ওই পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

Check Also

করোনামুক্ত হবে বাংলাদেশ: সুখবর দিলেন ড.বিজন

প্রতিদিনই মৃত্যুর শোকে ভারি হচ্ছে বাতাস। প্রতিদিনই নতুন করে আক্রান্তে হচ্ছেন হাজারো মানুষ। এ মৃত্যুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *